রাবিতে ছিনতাইয়ের দায়ে ছাত্রলীগের ২ নেতাকর্মী আটক

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ছিনতাইয়ের সময় ছাত্রলীগের দুই নেতাকর্মীকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। এ সময় তাদের ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের সামনে বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

গণপিটুনির শিকার একজনের নাম জনি আহমেদ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও ইনফরমেশন সায়েন্স এ্যান্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। তার সহযোগী রাজন ইসলাম (২৫) নগরীর কোর্ট বুলনপুর এলাকার শফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনিও ছাত্রলীগকর্মী।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিকেল ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের বারান্দায় বসে জেনেটিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দুই শিক্ষার্থী আড্ডা দিচ্ছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলে ছাত্রলীগ নেতা জনি ও কর্মী রাজন এসেই তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। জনি নিজেকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি পরিচয় দিয়ে আশপাশে থাকা অন্য শিক্ষার্থীদের সরে যেতে বলেন।

একপর্যায়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ওই দুই শিক্ষার্থীর কাছে থাকা ২ হাজার ৭০০ টাকা ও দুটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেন তারা। এ সময় এক শিক্ষার্থী সাহায্যের জন্য চিৎকার দিলে সিনেট ভবনের পাশে অবস্থিত সাবাস বাংলাদেশের মাঠে থাকা অন্য শিক্ষার্থীরা এসে তাদের আটক করেন।

এ সময় উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের গণপিটুনি দেন। একপর্যায়ে তাদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে আসার আগেই মোটরসাইকেলটি পুড়ে যায়।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে শিক্ষার্থীরা ওই দুই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে পুলিশে সোপর্দ করেন।

নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর জানান, ‘ছিনতাইয়ের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দুই জনকে মেরে পুলিশে দিয়েছেন। এ সময় তাদের মোটরসাইকেলটিও পুড়িয়ে দেন শিক্ষার্থীরা। তাদের থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা বলেন, ‘বিষয়টি শোনার সঙ্গে সঙ্গে এ ঘটনায় জড়িত বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ওই নেতাকে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ করা হয়েছে।’

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

E

h

E

h